মায়ের বুকের ওপর বসে মা'থা চেপে ধরে মে'য়ে, ছু'রি চালায় ভাড়াটে খু'নি

চাচার বাসায় বেড়ানোর কথা বলে বৃদ্ধা মা মিনারা বেগমকে সঙ্গে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয় শেফা'লী আক্তার। মাকে খু'ন করার জন্য এর আগেই সোহেল রানা নামে এক যুবকের সঙ্গে এক লাখ টাকার চুক্তি করেন শেফা'লী।

বাড়ি থেকে মিনারাকে সরাসরি নিয়ে যাওয়া হয় জনমানবশূন্য এক স্থানে। নেওয়ার পথেই তাকে পানীয়র সঙ্গে খাওয়ানো হয় ঘুমের ওষুধ। এতে তার শরীর নিস্তেজ হতে থাকে। এক পর্যায়ে শেফা'লী তার মায়ের মা'থায় আ'ঘাত করে। এতে তিনি লুটিয়ে পড়েন মাটিতে। পরে শেফা'লী তার মায়ের

বুকের ওপর বসে মা'থা চেপে ধরে আর ভাড়াটে খু'নি সোহেল রানা ছু'রি চালায় গলায়।শ্রীপুর উপজে'লার বরমী ইউনিয়নের ভিটিপাড়া এলাকায় সম্প্রতি ওই নারীকে খু'নের ঘটনার বর্ণনা এভাবেই আ'দালতে দিয়েছে দুই ঘা'তক।শুক্রবার সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর সার্কেলের সহকারী পু'লিশ সুপার আজমীর হোসেন জানান, ঘটনার ২০ দিনের মা'থায় গত বুধবার শ্রীপুর পৌরসভা'র কেওয়া এলাকা থেকে দু’জনকে গ্রে'প্তার করে থা'না পু'লিশ। বৃহস্পতিবার রাতে তাদের আ'দালতে হাজির করা হলে

স্বীকারোক্তিমূলক জবানব'ন্দি প্রদান করে। আ'দালতকে শেফা'লী জানায়, ১২ শতাংশ জমি ও ২টি গরু আত্মসাৎ করার জন্যই বিধবা মাকে নি'র্মমভাবে হ'ত্যা করে।পু'লিশ জানায়, সেই নির্জন জায়গাতেই মায়ের লা'শ ফেলে রেখে পাশের একটি দিঘির জলে র'ক্তমাখা হাত ধুয়ে ঘটনাস্থল থেকে চলে যায় শেফা'লী। পরদিন বাড়িতে এসে সে সবাইকে জানায়, কুমিল্লা এলাকায় তার মাকে বিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং তিনি সেখানে চলে গেছেন। এই বৃদ্ধা বয়সে তাকে বিয়ে দেওয়ার বিষয়টিতে স'ন্দেহ হয় সবার।

শেফা'লী জন্মগ্রহণের ৫-৬ বছর পর মিনারা তার স্বামীকে হারান। একমাত্র সন্তান শেফা'লীর সুখের জন্য আর সংসারই গড়েননি তিনি। স্বামীর রেখে যাওয়া ১২ শতাংশ জমিতে ঘর তৈরি করে বসবাস করতে থাকেন। শেফা'লীকে বছর বিশেক আগে বিয়ে দেওয়া হয়। তার তিনটি সন্তানও রয়েছে। পু'লিশ জানায়, এরই মধ্যে মিনারার এক ভাই একটি হ'ত্যা মা'মলায় আ'সামি হয়। নিজের দুটি গরু বিক্রি করে মা'মলা পরিচালনার জন্য ভাইকে টাকা দিতে চেয়েছিলেন মিনারা। আর এটাই কাল হয় তার। গরু বিক্রি করে টাকা

না দেওয়ার জন্য মাকে নিষেধ করে শেফা'লী। এ নিয়ে মা-মে'য়ের মধ্যে স'ম্পর্কের অবনতি হতে থাকে। এক পর্যায়ে মায়ের ওই সম্পত্তি ও গরুগুলো নিজের দখলে নিতেই হ'ত্যার পরিকল্পনা করে সে।হ'ত্যার পরদিন বাড়ি থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে বরমীর মান্নানের টেক এলাকায় একটি ঝোপে পাওয়া যায় মিনারার লা'শ। গলাকা'টা এ লা'শ শনাক্ত করতে না পারায় পু'লিশ পরিচয় চেয়ে পোস্টার এঁটে দেয় দেয়ালে দেয়ালে।সহকারী পু'লিশ সুপার আজমীর বলেন, অ'জ্ঞাতপরিচয়ের ওই লা'শ শনাক্তের পর র'হস্য উদ্ঘাটনে মাঠে নামে শ্রীপুর থা'না পু'লিশ। ঘটনার ২০ দিনের মা'থায় ক্লুলেস এ হ'ত্যা মা'মলার র'হস্য বের করে আনে পু'লিশ।

Back to top button

You cannot copy content of this page