গত ২৪ ঘণ্টায় ভা'রতে মৃ'ত্যুর পরিসংখ্যান ভেঙে ফেলেছে অ'তীতের সব রেকর্ড

করোনার ভ'য়াল থাবায় টালমেটাল ভা'রত। দেশটিতে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ আ'ক্রান্ত হচ্ছে। হাজারো মানুষের প্রা'ণ যাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মৃ'ত্যুর পরিসংখ্যান ভেঙে ফেলেছে অ'তীতের সব রেকর্ড।

একদিনে মৃ'ত্যু হয়েছে ৪ হাজার ২০৫ জনের। যা এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এর আগে গত ৭ মে সর্বোচ্চ ৪ হাজার ১৮৭ জনের মৃ'ত্যু হয়।আজ বুধবার (১২ মে) টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত সপ্তাহে করো'না সংক্রমণ সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছায়। তবে গত ২ দিনে করো'না শনাক্তের হার কিছুটা কমেছে। নতুন করে দেশটিতে ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৩৭১ জনের করো'না শনাক্ত হয়।

এর আগের দিন করো'না শনাক্ত হয় ৩ লাখ ২৯ হাজার ৯৪২ জনের। করো'না ভাই'রাসে আ'ক্রান্ত, মৃ'ত্যু ও ‍সুস্থতার হিসাব রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের সবশেষ দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বুধবার (১২ মে) দেশটিতে ২ লাখ ৫৪ হাজার ছাড়িয়েছে করো'নায় মোট মৃ'ত্যু। মোট আ'ক্রান্ত ২ কোটি ৩৩ লাখ ৪০ হাজারের বেশি। সংক্রমণ ঠেকাতে দেশটির বেশিরভাগ রাজ্যে চলছে লকডাউন।

বিশ্ব করো'না: করো'নাভাই'রাসে আ'ক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রা'ণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী করো'নায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে সংক্রমণ ও মৃ'ত্যু বেশি হয়েছে যু'ক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করো'না সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৩৫ লাখ ৫০ হাজার ১১১ জন আর ৫ লাখ ৯৬ হাজার ৯৪৬ জন মা'রা গেছেন। করো'নায় আ'ক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে প্রতিবেশী দেশ ভা'রত। তবে ভাই'রাসে আ'ক্রান্ত হয়ে মৃ'তের তালিকায় দেশটির অবস্থান চতুর্থ। দেশটিতে মোট আ'ক্রান্ত ২ কোটি ৩৩ লাখ ৪০ হাজার ৪৫৬ জন এবং মা'রা গেছেন ২ লাখ ৫৪ হাজার ২২৫ জন।

লাতিন আ'মেরিকার দেশ ব্রাজিল করো'নায় আ'ক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃ'ত্যুর সংখ্যায় তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগী ১ কোটি ৫২ লাখ ৮৫ হাজার ৪৮ জন এবং মৃ'ত্যু হয়েছে ৪ লাখ ২৫ হাজার ৭১১ জনের। এদিকে আ'ক্রান্তের তালিকায় রাশিয়া ষষ্ঠ, যু'ক্তরাজ্য সপ্তম, ইতালি অষ্টম, স্পেন নবম এবং জার্মানি দশম স্থানে রয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৩তম। গত বছরের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান থেকে করো'নাভাই'রাস সংক্রমণ শুরু হয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ২১৮টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড-১৯।

Back to top button

You cannot copy content of this page