অ'ভিশংসিত হলেন ট্রা'ম্প

যু'ক্তরাষ্ট্রের সেনেটের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ বা প্রতিনিধি পরিষদ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রা'ম্পকে অ'ভিশংসিত করেছে। গত সপ্তাহের ক্যাপিটলের দাঙ্গার ঘটনায় “বিদ্রোহে উস্কানি” দেয়ার কারণে তাকে অ'ভিশংসিত হতে হল। খবর বিবিসি বাংলার।

তার নিজের দল রিপাবলিকানের ১০ জন সদস্য ট্রা'ম্পের বিপক্ষে গিয়ে ভোট দিয়ে তাকে অ'ভিশংসিত করে। ট্রা'ম্পের অ'ভিশংসনের পক্ষে ২৩২ ভোট এবং বিপক্ষে ১৯৭ ভোট পড়ে।

তিনি যু'ক্তরাষ্ট্রের একমাত্র প্রেসিডেন্ট যিনি দুই বার অ'ভিশংসিত হয়েছেন এবং কংগ্রেসের পক্ষ থেকে যাকে অ'প'রাধ সংগঠনে জড়িত থাকার কারণে অ'ভিযু'ক্ত করা হয়েছে।

মি. ট্রা'ম্প যিনি নিজেও একজন রিপাবলিকান, তিনি এখন সেনেটে বিচারের সম্মুখীন হবেন। দোষী সাব্যস্ত হলে তিনি আবারো ক্ষমতায় আসার সুযোগ চিরতরে হারাতে পারেন।

দেশটির স্থানীয় সময় বুধবার প্রতিনিধি পরিষদে ২৩২-১৯৭ ভোটে ট্রা'ম্পকে অ'ভিশংসনের প্রস্তাব পাস হয়। ডেমোক্র্যাটদের আনা এই প্রস্তাবে ১০ জন রিপাবলিকান নেতা ভোট দেন ।

গত সপ্তাহে ক্যাপিটল ভবনে নজিরবিহীন হা'মলা চালায় ট্রা'ম্পের উগ্র সম'র্থকেরা। সং'ঘর্ষে এখন পর্যন্ত পাঁচ জনের নি'হত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আর ওই হা'মলার ট্রা'ম্পের ভাষণের মাধ্যমে তার অনুসারীরা প্ররোচিত হয়েছেন বলে অ'ভিযোগ উঠে। এই অ'ভিযোগেই ট্রা'ম্পকে দ্বিতীয়বার অ'ভিশংসন করলেন ডেমোক্র্যাটরা।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রা'ম্পের বি'রুদ্ধে অ'ভিশংসনের প্রস্তাব প্রতিনিধি পরিষদে পাস হলেও তাকে আর ক্ষমতা থেকে সরানো যাচ্ছে না। কেননা ২০ তারিখের আগে সিনেটে কোন অধিবেশন বসছে না।

তবে সিনেটে অ'ভিশংসনের প্রস্তাব পাস হলে ট্রা'ম্প আর কখনও নির্বাচনে আর দাঁড়াতে পারবেন না। প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, কেউ আইনের উর্ধে নয়, এমনি প্রেসিডেন্ট ট্রা'ম্পও নন।

এদিকে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ট্রা'ম্পের অ'ভিশংসন নিয়ে এখন পর্যন্ত কোন মন্তব্য করেননি।

বুধবার ট্রা'ম্পকে অ'ভিশংসনের প্রস্তাবের ভোটের আগে কয়েক ঘণ্টা ধরে বিতর্ক চলে। সেসময় ক্যাপিটলের ভিতরে এবং বাইরে দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষীরা অবস্থান করছিল।

এর আগে দেশটির গোয়েন্দা সংস্থা এফবি আই সর্তক করে জানিয়েছে, বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠান ঘিরে ওয়াশিং টন এবং ৫০ টি রাজ্যে সশস্ত্র বি'ক্ষোভ হতে পারে।

জুমবাংলানিউজ/এইচএম

Back to top button

You cannot copy content of this page