আর কোনো ভোট পেছাবে না নির্বাচন কমিশন

দ্বিতীয় ধাপে করো'না সংক্রমণ বাড়ার শ'ঙ্কা থাকলেও আর কোনো নির্বাচন পেছাবে না কমিশন। একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। ডিসেম্বরে কয়েক ধাপে পৌরসভা নির্বাচন শুরুর পর মা'র্চ থেকে ধাপে ধাপে হবে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন।

নির্বাচন কমিশন বলছে, আইনী বাধ্যবাধকতার কারণে মেয়াদের মধ্যেই শেষ হবে সব ভোট। পৌরসভা'র পর ইউনিয়নেও ভোট হবে হবে ইভিএম পদ্ধতিতে। পাঁচ বছর পর আবারো নির্বাচন ঘিরে ব্যস্ততা বেড়েছে দেশের পৌর এলাকাগুলোতে। সব শেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয় পৌরসভা নির্বাচন।

এবার যখন পৌর নির্বাচনের মেয়াদ শেষ, তখন করো'না মহামা'রী দেশজুরে। কোথাও কোথাও নির্বাচন পেছানোর জন্য নির্বাচন কমিশনে আবেদন করলেও শেষ পর্যন্ত মেয়াদের মধ্যেই ভোট আয়োজনের কাজ শুরু করেছে কমিশন। মেয়াদ পূর্ণ হওয়া প্রায় তিনশো পৌরসভা'র ভোট। ডিসেম্বরে শুরু হয়ে তিন থেকে চার ধাপে শেষ হবে ভোট। মা'র্চের প্রথম সপ্তাহেই মেয়াদ শেষ হওয়া সবগুলোতে ভোট করতে চায় কমিশন।

পৌরসভা'র পর মা'র্চেই শুরু হবে ইউনিয়ন পরিষদের ভোট। গত বারের মতো এবারো ভোট হবে পাঁচ থেকে ছয় ধাপে। ৪ হাজার ৫৭১ টি ইউনিয়নের মধ্যে যেগুলোর মেয়াদ শেষ হবে সেগুলোর ভোট হবে আগে। পৌরসভা'র মতো ইউনয়ন পরিষদের ভোটও ইভিএম এ করতে চায় কমিশন। তবে, সক্ষমতা বিবেচনায় সব ইউনিয়নে ভোট করার মতো প্রস্তুতিও নেই। গতবারের মতো এবারো স্থানীয় সরকারের সব নির্বাচনই হবে দলীয় প্রতীকে।

Back to top button

You cannot copy content of this page