ব্যবসায়ীকে মা'রধরের ভিডিও ফেসবুকে, সেই ছাত্রলীগ নেতাসেহ গ্রে'ফতার ৩

নওগাঁর মহাদেবপুরে ব্যবসায়ীকে মা'রপিট ও চাঁদাবাজির অ'ভিযোগে করা মা'মলায় অবশেষে গ্রে'ফতার হয়েছেন উপজে'লা ছাত্রলীগের সদ্য বহিষ্কৃত সভাপতি রাজু আহমেদসহ তিনজন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাতে রাজধানী ঢাকার হাসকোনা এলাকায় অ'ভিযান চালিয়ে তাদের গ্রে'ফতার করে পু'লিশ।
গ্রে'ফতার ছাত্রলীগের ওই তিন নেতাকর্মী হলেন- মহাদেবপুর উপজে'লা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ (৩০), ছাত্রলীগ নেতা নয়ন (২৫) ও ছাত্রলীগকর্মী ইম'রান মহুরী (২২)।

মহাদবেপুর থা'নার ওসি নজরুল ইস'লাম জানান, গত ৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় মহাদেবপুর উপজে'লা সদরের বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আরএফএল ভিগো শোরুমের স্বত্বাধিকারী সোহেল রানার দোকানে ঢুকে তাকে মা'রধর করে তুলে নিয়ে যায় উপজে'লা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ ও তার সঙ্গীরা।

এ ঘটনায় গত ৬ সেপ্টেম্বর রাজু, নয়নসহ অ'জ্ঞাত আরও ৬-৭ জনের বি'রুদ্ধে থা'নায় চাঁদাবাজি ও মা'রধরের মা'মলা করেন ওই ব্যবসায়ী। মা'মলার পর থেকে এজহারভুক্ত আ'সামিরা পলাতক ছিলেন। মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে রাজু আহমেদ, নয়ন ও ইম'রান মহুরীকে গ্রে'ফতার করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, গ্রে'ফতার ওই তিনজনকে বুধবার সকালে আ'দালত পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত রোববার ব্যবসায়ী সোহেলের দোকানের সিসি ক্যামেরায় তাকে মা'রপিটের ধারণ করা ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। মুহূর্তেই ওই ভিডিও ভাই'রাল হয়ে পড়ে।

ভিডিও ভাই'রাল হওয়ার পর গত সোমবার মহাদেবপুর উপজে'লা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করে জে'লা ছাত্রলীগ।

রাজুর বি'রুদ্ধে মা'মলা হওয়ার পর সংগঠন থেকে গত ১৩ সেপ্টেম্বর তাকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয় এবং স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে সুপারিশ পাঠানো হয়েছে।

Back to top button

You cannot copy content of this page