বিশ্বজুড়ে বাড়ছে হাহাকার, আ'ক্রান্ত ছাড়াল ১ কোটি ৪ লাখ!

চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া ভাই'রাস করো'নার প্রকোপ থামছেই না। প্রতিদিন প্রা'ণঘাতী ভাই'রাসটি কেড়ে নিচ্ছে হাজারো প্রা'ণ। আ'ক্রান্তের তালিকাও দিন দিন লম্বা হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করো'নায় বিশ্বে মৃ'তের তালিকায় নাম উঠেছে আরও ৩ হাজার ৪১৫ জনের এবং একই সময়ে আ'ক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬০ হাজার ৯৮৫ জন মানুষ। করো'নাভাই'রাস নিয়ে লাইভ আপডেট দেয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে। আজ মঙ্গলবার (৩০ জুন) সকাল পর্যন্ত করো'নায় বিশ্বব্যাপী নি'হতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৮ হাজার ৭৭ জনে এবং আ'ক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৪ লাখ ৮ হাজার ৪২০ জন। অ'পরদিকে ৫৬ লাখ ৬৪ হাজার ৩৫৫ জন করো'না থেকে সুস্থ হয়েছেন।

এদিকে, তিন শতাধিক মৃ'ত্যুতে যু'ক্তরাষ্ট্রে প্রা'ণহানি এক লাখ ২৯ হাজার ছুঁইছুঁই। মোট আ'ক্রান্ত ২৭ লাখ মানুষ। যদিও দিনের সর্বোচ্চ মৃ'ত্যু হয়েছে ব্রাজিলে, মা'রা গেছেন সাতশ’র বেশি মানুষ। দেশটিতে মোট মৃ'ত্যু সাড়ে ৫৮ হাজারের মতো। আ'ক্রান্ত পৌনে ১৪ লাখ। এরপরই এদিন মৃ'ত্যুর তালিকায় শীর্ষে ছিল ভা'রত। চার শতাধিক মৃ'ত্যুতে মোট প্রা'ণহানি ১৭ হাজার ছুঁইছুঁই। বেশি প্রা'ণহানি হয়েছে মেক্সিকোতে। সংক্রমিত দু’লাখের বেশি। এদিকে শহরভিত্তিক সংক্রমণে মুম্বাইকে ছাড়িয়ে, ভা'রতে করো'নার সবচেয়ে বড় হটস্পট এখন রাজধানী দিল্লি। কোনো কোনো দেশে আরোপ করা হয়েছে সম্পূর্ণ লকডাউন, কোথাও কোথাও আংশিকভাবে চলছে মানুষের দৈনন্দিন কার্যক্রম। এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন এলাকার প্রায় অর্ধেক মানুষ চলাফেরার ক্ষেত্রে কোনো না কোনো মাত্রায় নিষেধাজ্ঞার ওপর পড়েছেন। তবে এরই মধ্যে বিভিন্ন দেশ লকডাউন শিথিল করছে ও নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। করো'নাভাই'রাস মূলত শ্বা'সতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে ডেকে আনতে পারে মৃ'ত্যু।

Back to top button

You cannot copy content of this page